শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:২৯ অপরাহ্ন

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলায় স্বামী, ভাসুর এবং জা’র নি’র্যা’তনে টুম্পা অধিকারী নামে এক গৃহবধূ আ’ত্মহ’ত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। আ’ত্মহ’ত্যার আগে পায়ে কলম দিয়ে মৃ’ত্যুর জন্য তিনজনকে দা’য়ী করে তাদের নাম লিখে রাখেন।

গত বুধবার (৯ জুন) বিকেলে টুম্পার ম’রদে’হ উ’দ্ধার করে মর্গে পাঠায় পু’লি’শ। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়’নাত’দন্ত শেষে তার ম’রদেহ পরিবারের কাছে হ’স্তান্ত’র করা হয়।

এদিকে, এ ঘটনায় বুধবার রাতে টুম্পার বোন কল্পনা অধিকারী বা’দী হয়ে টুম্পার স্বামী স্বপন মন্ডল, ভাসুর বিবেক মন্ডল ও জা রীতা রানী মন্ডলকে আসা’মি করে আগৈলঝাড়া থা’নায় একটি মা’ম’লা দায়ের করেন। পু’লি’শ ওই রাতেই অ’ভিযু’ক্ত স্বামী স্বপন মন্ডলকে গ্রে’প্তা’র করে। বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বপনকে আদা’লতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়। টুম্পার স্বামী গ্রে’প্তা’র স্বপন মন্ডল মাদারীপুর জেলার ডাসার থা’নার নবগ্রাম এলাকার প্রয়াত ব’ঙ্কিম মন্ডলের ছেলে।

মা’ম’লা তদ’ন্ত কর্মকর্তা আগৈলঝাড়া থা’নার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মিশু জানান, টুম্পার সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করার সময় হাটুর নিচের অংশের দু’পায়ে কলম দিয়ে তার মৃ’ত্যুর কারণ ও মৃ’ত্যুর জন্য দায়ী স্বামী স্বপন মন্ডল, ভাসুর বিবেক মন্ডল ও বিবেকের স্ত্রী রীতা মন্ডলের নাম লেখা দেখা যায়। এ ছাড়াও তার মায়ের শ্ম’শা’নের কাছে তার ম’রদেহ সৎকার করার কথা লেখেন তিনি।

আগৈলঝাড়া থা’নার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম ছরোয়ার জানান, ১১ বছর আগে পারিবারিকভাবে টুম্পার সঙ্গে স্বপনের বিয়ে হয়। শ্বশুর বাড়িরসহ অন্যান্যদের অ’ত্যাচা’র স’হ্য করতে না পেরে টুম্পা তার স্বামীকে নিয়ে আগৈলঝাড়া উপজেলার রামানন্দেরআক গ্রামে বাবার বাড়িতে থাকতেন। জমিজমা সহ পারিবারিক নানা বিষয়ে সুরহা করতে মঙ্গলবার সকালে টুম্পা তার শ্বশুরবাড়ি মাদারীপুরের নবগ্রাম এলাকায় যান। এ সময় ভাসুর বিবেক মন্ডল ও জা রীতা রানী মন্ডল তাকে অশ্রা’ব্য ভা’ষায় অ’পমান করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দেন। স্বামী স্বপন মন্ডল এর প্রতিবাদ করেননি।

আগে থেকে তিনি স্ত্রীর ওপর নি’র্যাত’ন করতেন বলে অ’ভিযো’গ রয়েছে। এ কারণে টুম্পা ওই রাতেই বাবার বাড়ি ফিরে বিষপান করে আ’ত্মহ’ত্যা করেন।

ওসি আরো বলেন, মামলার এক নম্বর আ’সা’মিকে গ্রে’প্তা’র করা হয়েছে। অপর আ’সা’মিদের গ্রে’প্তা’রের চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন